how to increase smartphone battery backup

স্মার্টফোনের ব্যাটারি ব্যাকআপ বাড়ানোর ১০ পরামর্শ

এক সময় ছিল যখন মানুষ শুধুমাত্র কথা বলার জন্য মুঠোফোন ব্যবহার করতো কিন্তু বর্তমানে সেই ধারনাটি সম্পূর্ন পাল্টে গেছে এখন কেউই আর শুধু কথা বলার জন্য মোবাইল ফোন ব্যবহার করেন না। মানুষ এখন মোবাইল ফোনের মাধ্যমে অসংখ্য কাজ করে থাকেন। মূলত এই মাল্টিপল কাজ করার বিষয়টি শুরু হয়েছে স্মার্টফোন ব্যবহারের মধ্য দিয়ে। এখন স্মার্টফোনের মাধ্যমে বিভিন্ন ধরনের আপ্লিকেশন ব্যবহার করে মানুষ খুব সহজেই নিজের প্রয়োজনীয় অসংখ্য কাজ করতে পারেন। ধরুন সকালে ঘুম থেকে উঠেই অনলাইনে খবর পড়া, ইমেইল চেক করা, ফেসবুক দেখা, গান শোনা, নিজের কিংবা পরিবারের বিভিন্ন অনুষ্ঠানের ছবি উঠানো, ভিডিও ধারন করা এ রকম হাজারো কাজ মানুষ খুব সহজেই স্মার্টফোনের বিভিন্ন এ্যাপ্স ব্যবহার করে করতে পারেন। এভাবে স্মার্টফোন আমাদের অত্যন্ত প্রয়োজনীয় একটি সঙ্গি হয়ে গেছে। একদিন যদি আমরা এই ফোন থেকে দূরে থাকি তাহলে অস্থির হয়ে যাই। এই স্মার্টফোন ব্যবহার করতে গিয়ে আমরা অনেক সময় একটি বিষয়ে দুশ্চিন্তায় পড়ে যাই আর সেটি হলো স্মার্টফোনের ব্যাটারি ব্যাকআপ নিয়ে। আজকে আমি আপনাদেরকে ১০টি পরামর্শ দিব যাতে করে আপনাদের স্মার্টফোনের ব্যাটারি ব্যাকআপ অনেকটাই বাড়ানো যাবে। তো চলুন শুরু করা যাক।


১। আপনার ডিভাইসের ব্রাইটনেস সবসময় ১০০% রাখবেন না। হ্যাঁ যখন আপনার প্রয়োজন হবে যেমন ধরুন যখন কোন কিছু পড়বেন তখন প্রয়োজনমত বাড়িয়ে নিবেন। অন্য সময় ব্রাইটনেস ৩০% থেকে ৩৫% রাখতে পারেন। এতে করে আপনার স্মার্টফোনের ব্যাটারি ব্যাকআপ স্বাভাবিকের চেয়ে অনেক দীর্ঘস্থায়ী হবে।

২। প্রয়োজন ব্যতিত আপনার স্মার্ট ফোনের  GPS, WiFi, Bluetooth, Mobile Data ইত্যাদি অপশন অফ করে রাখুন। এসব অপশন অন থাকলে ব্যাটারি লস হয়।

৩। স্মার্টফোনে লাইভ ওয়ালপেপার ব্যবহার থেকে বিরত থাকুন। হ্যাঁ বিশেষ কোন প্রোগ্রামে ব্যবহার করতে পারেন তবে প্রয়োজন শেষ হলে লাইভ ওয়ালপেপার বন্ধ রাখুন।

৪। অপ্রয়োজনীয় অ্যাপ্স অযথায় ইন্সটল করবেন না। যেমন ধরুন কোন একটি অ্যাপ্স ইন্সটল করেছেন কিন্তু আসলে সেই অ্যাপ্সটি আপনি পরবর্তীতে আর ব্যবহার করবেন না তাহলে সঙ্গে সঙ্গে সেই অ্যাপ্সটি আনইন্সটল করে ফেলুন। যত বেশি অ্যাপ্স ইন্সটল থাকবে আপনার স্মার্টফোনের ব্যাটারি ততই লস হতে থাকবে। তাই প্রয়োজনের বাইরে অ্যাপ্স ইন্সটল করা থেকে সম্পূর্ন বিরত থাকুন।

৫। স্মার্টফোনের ব্যাটারির ব্যাকআপ যখন ২০% এর নিচে চলে আসে তখন ফোনটি বিশেষ প্রয়োজন ছাড়া ব্যবহার না করাই ভালো এতে করে ব্যাটারির কার্যকারিতা কমে যায়।

৬। রাতে স্মার্টফোন চার্জে লাগিয়ে ঘুমাবেন না তার কারন ব্যাটারি যখন ১০০% চার্জ পেয়ে যাবে আপনার ঘুমের কারনে সেটি বিদ্যুতের সাথে কানেক্টেড থাকবে এর ফলে ব্যাটারির প্রকৃত কার্যকারিতা কমে যাবে। এমনকি অতিরিক্ত চার্জের কারনে বড় ধরনের দূর্ঘটনা পর্যন্ত ঘটতে পারে। তাই এই বিষয়ে সর্বোচ্চ সতর্ক থাকুন।

৭। স্মার্টফোনের অরিজিনাল চার্জার ব্যবহার করুন। অন্যের চার্জার ব্যবহার থেকে বিরত থাকুন। একান্ত প্রয়োজনে ব্যবহার করতে পারেন। তবে অপ্রয়োজনে এই কাজটি এড়িয়ে চলুন।

৮। আপনার স্মার্টফোনের অরিজিনাল চার্জার যদি হারিয়ে যায় কিংবা নষ্ট হয়ে যায় তাহলে অবশ্যই অবশ্যই ভালো মানের চার্জার কিনবেন। কখনই সস্তা কিংবা নিম্ন মানের চার্জার কিনবেন না এবং ব্যবহার করবেন না।

৯। উচ্চ তাপমাত্রা স্থল যায়গায় স্মার্টফোন রাখা থেকে বিরত থাকুন। যেমন ধরুন আপনি রান্না করছেন এবং পাশাপাশি মোবাইল ফোনে লাউড স্পিকার দিয়ে গান শুনছেন। সেক্ষেত্রে মোবাইল ফোনটি চুলার আশেপাশে না রেখে যেখানে কম তাপমাত্রা আছে অর্থাৎ স্বাভাবিক তাপমাত্রা স্থলে রাখুন। উচ্চ তাপমাত্রা স্থলে মোবাইল ফোন রাখলে ব্যাটারির কার্যকারিতা কমে যায়।

১০। সম্ভব হলে স্মার্টফোনের সুইচ অফ করে ব্যাটারিতে চার্জ দিন। কেননা স্মার্টফোনের সুইচ অফ করে চার্জ দেওয়াই উত্তম।

আশা করি এই ১০টি পরামর্শ আপনাদের কাজে আসবে। ধৈর্য ধরে পরামর্শগুলি পড়ার জন্য আপনাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ।


www.govideotube.com ওয়েব সাইটের যেকোন ভিডিও কিংবা পোস্ট যদি আপনার ভালো লাগে তাহলে অবশ্যই অবশ্যই govideotube ইউটিউব চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করবেন এবং govideotube ফেসবুক পেজটি লাইক দিবেন। যেকোন মতামতের জন্য কমেন্টস করুন। ভালো থাকবেন, নিরাপদে থাকবেন। ধন্যবাদ।

Add your comment

Your email address will not be published.